ঢাকারবিবার , ৪ জুলাই ২০২১
আজকের সর্বশেষ সবখবর

স্কুলে বিয়ের অনুষ্ঠানের অনুমতি না দেয়ায় প্রধান শিক্ষক লাঞ্ছিত

Sagor Ahmed
জুলাই ৪, ২০২১ ৭:২৬ অপরাহ্ণ
Link Copied!

স্কুলে মেয়ের বিয়ের অনুমতি চেয়েছিলেন অভিভাবক কমিটির সদস্য মোহাম্মদ একরাম মিয়া। তবে করোনা পরিস্থিতির কারণে অনুমতি দেননি প্রধান শিক্ষক নিজাম উদ্দিন। এই ঘটনার জেরে একরাম মিয়া  ও তার পরিবারের সদস্যদের হাতে ওই প্রধান শিক্ষক লাঞ্ছিত হয়েছেন। পরে শিক্ষকের দায়ের করা মামলায় শনিবার (৩রা জুলাই) মিয়া মোহাম্মদ হারুন নামে এক ব্যক্তিকে আটক করেছে পুলিশ। আটক হারুন মেয়ের বাবা একরাম মিয়ার ছোট ভাই ও চট্টগ্রাম মহানগর যুবদলের সহ-সভাপতি।
জানা যায়, চট্টগ্রাম নগরীর ডবলমুরিংয়ের মনসুরাবাদ এলাকার খান সাহেব আব্দুল হাকিম উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির অভিভাবক সদস্য মো. একরাম মিয়া স্কুলে তার মেয়ের বিয়ের অনুষ্ঠানের জন্য অনুমতি চান। কিন্তু করোনার জন্য বন্ধ স্কুলে বিয়ের অনুমতি দেননি প্রধান শিক্ষক মোহাম্মদ নিজাম উদ্দিন। তবুও অনুমতি ছাড়াই গত ২৫ জুন স্কুলে বিয়ের আয়োজন করেন তিনি।

কিন্তু গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সে বিয়ে বন্ধ করে দেন চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের একজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট। এরপর স্কুলে মেয়ের বিয়ে হতে না দেয়ায়  শিক্ষকদের স্কুলে আসতে মানা করেন একরাম মিয়া।

এদিকে বিষয়টি নিয়ে প্রধান শিক্ষক নিজাম উদ্দিন শিক্ষা বোর্ডে অভিযোগ করলে গত ৩০ জুন  থানা শিক্ষা কর্মকর্তা  মোঃ শফিউল আলমের নেতৃত্বে একটি তদন্ত দল সেখানে আসেন। এসময়  প্রধান শিক্ষকসহ আরও কয়েকজন শিক্ষকও আসেন। তাদের আসতে দেখেই জোরপূর্বক স্কুলে ঢুকেন একরাম মিয়ার ভাই চট্টগ্রাম মহানগর যুবদলের সহ সভাপতি মিয়া মোঃ হারুন খান, আরেক ভাই জানে আলম, মোঃ মাসুদ, মোঃ প্রিন্স এবং মোঃ আল নাহিয়ান। তারা প্রধান শিক্ষকের রুমে ঢুকেই অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করেন। এক পর্যায়ে টেবিলে থাপ্পড় মেরে  তাকে দেখে  নেয়ার  হুমকি দেন।
জানা যায়, এই ঘটনায় প্রধান শিক্ষক নিজাম উদ্দিন গতকাল শনিবার (৩ জুলাই) যুবদল নেতা মিয়া মোহাম্মদ হারুনকে প্রধান আসামি করে ৬ জনের বিরুদ্ধে ডবলমুরিং  থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। মামলার ভিত্তিতে রাতেই পুলিশ অভিযান চালিয়ে হারুনকে আটক করেন।
এই বিষয়ে ডবলমুরিং  থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি মোহাম্মদ মহসিন  বলেন, স্থানীয় স্কুলের প্রধান শিক্ষক নিজাম উদ্দিনের দায়ের করা মামলায়  মনসুরাবাদের খান বাড়ি এলাকা থেকে মিয়া মোহাম্মদ হারুন নামে এক ব্যক্তিকে আটক করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে এর আগেও নাশকতার মামলা আছে। বাকি আসামিদেরও গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

✅ আমাদের প্রকাশিত কোন সংবাদের বিরুদ্ধে আপনার মতামত বা পরামর্শ থাকলে ই-মেইল করুনঃ dailyvorerkhabor@gmail.com ❌ বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।