বুধবার, ৩০ নভেম্বর ২০২২, ০৫:৩২ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
টঙ্গিবাড়ীতে প্রকাশ্যে চলছে উচ্চ বিদ্যালয়ের ভিতরে কোচিং বাণিজ্য সাভারের তাজরীন ট্রাজেডির দশ বছর আজ ঈশ্বরদী উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকদল এর সদস‍্য সচিব মেহেদী হাসান এর শোক প্রকাশ জাককানইবি’তে দুইদিনব্যাপী ‘ন্যাশনাল ক্যাম্পাস জার্নালিজম ফেস্ট’ শুরু উপজেলা নির্বাহী অফিসারের আশ্রায়ন প্রকল্পের ঘর পরিদর্শন মাথাপিছু আয়ের মিথ্যা গল্প শোনায় সরকার -কেএম হারুন তারেক রহমানের জন্মদিন উপলক্ষে জিসাফো’র আলোচনা সভা টঙ্গীবাড়ীতে ৮০০ পিস ইয়াবাহ সহ গ্রেফতার ১ এবার কোনো নির্বাচন এদেশে হবে না যতক্ষন না নিরপেক্ষ সরকার করা হবে সিংগাইরে খাল থেকে পাগলীর ভাসমান লাশ উদ্ধার বেড়ার মুক্তিযোদ্ধাদের একাংশের সংবাদ সম্মেলন – মুক্তিযোদ্ধা মন্ত্রণালয়ের প্রজ্ঞাপনে যাচাই বাছাই কার্যক্রম স্থগিত পাকিস্তান অনূর্ধ্ব ১৯ দলকে হারালো বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব ১৯ দল; ম্যান অফ দ্যা ম্যাচ নির্বাচিত হলেন মুন্সিগঞ্জের মারুফ মৃধা শিবালয়ে ড্রেজার বাণিজ্যের অভিনব কৌশল আনলোডের অন্তরালে যমুনার বালু লুট সিংগাইরে খালের জমিতে স্থাপনা নির্মাণকান্ডে আওয়ামীলীগ নেতার বিরুদ্ধে থানায় জিডি পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষ ও ভাঙচুরের মামলায় মুন্সিগঞ্জে বিএনপির ৯ নেতা-কর্মী কারাগারে টঙ্গীবাড়ীতে নতুন প্রজন্মের বীজ আলু ভ্যালেন্সিয়া সম্পর্কে কৃষকদের অবহিতকরণ ও আলোচনা সভা ফরিদপুর বিভাগীয় গণ সমাবেশ সফল করার লক্ষ্যে সাংবাদিক সম্মেলন করেছে জেলা ও মহানগর বিএনপি ফরিদপুর বিভাগীয় গণ সমাবেশ সফল করার লক্ষ্যে সাংবাদিক সম্মেলন করেছে জেলা ও মহানগর বিএনপি নীলফামারীতে স্কুল ড্রেস পরে আড্ডা, ১৩ শিক্ষার্থীকে অভিভাবকদের হাতে তুলে দিল পুলিশ। মেলার নামে অশ্লীল নৃত্য, অতিষ্ঠ এলাকাবাসী, নির্বাক প্রশাসন!

টঙ্গিবাড়ীতে প্রকাশ্যে চলছে উচ্চ বিদ্যালয়ের ভিতরে কোচিং বাণিজ্য

নিজস্ব প্রতিনিধি
  • Update Time : বৃহস্পতিবার, ২৪ নভেম্বর, ২০২২
  • ৫০ পাঠক সংখ্যা

আপন সরদার টঙ্গীবাড়ী, মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধিঃ মুন্সীগঞ্জের টঙ্গিবাড়ী উপজেলার বেতকা ইউনিয়ন উচ্চ বিদ্যালয়ের ভিতরে প্রকাশ্যে কোচিং বাণিজ্য চলছে। প্রতিদিন সকাল ৮ হতে শুরু হয়ে সকাল সাড়ে ৯টা পর্যন্ত চলে এই কোচিং বাণিজ্য। এই কোচিং বাণিজ্যকে গত জুন মাস হতে বাধ্যতামূলক করা হলেও পরে ওই স্কুলের অভিভাবকদের চাপের মুখে পিছু হটে স্কুলের শিক্ষকরা।

তবে এখনো বিভিন্ন কৌশলে ছাত্র-ছাত্রীদের কোচিং করতে বাধ্য করা হচ্ছে । যার কারণে ওই স্কুলের ছাত্র-ছাত্রী কোচিং করতে বাধ্য হচ্ছে। এক হাজারের অধিক ওই স্কুলের ছাত্র ছাত্রীকে সপ্তাহে ৩দিন করে কোচিং করানো হচ্চে। ২ বিষয়ে পড়িয়ে মাসে নেওয়া হচ্ছে ৬শত করে টাকা। স্কুলের শিক্ষার্থীদের সুত্রে জানাগেছে রবি, মঙ্গল ও বৃহস্পতিবার ছাত্রীদের এবং সোম, বুধ ও বৃহস্পতিবার ছাত্রদের কোচিং করানো হচ্ছে । ভুক্তভোগী ছাত্র-ছাত্রীদের অভিযোগ রবি থেকে বুধবার ছাত্র-ছাত্রীদের আলাদাভাবে এবং বৃহস্পতিবার সকল ছাত্র-ছাত্রীদের একসাথে বসিয়ে এ কোচিং করাচ্ছেন শিক্ষকরা। যেখানে স্কুলের খন্ডকালিন শিক্ষকদের প্রাধান্য দিয়ে ওই কোচিং আয়ের মুস্টিমেয় অংশ কোচিং ক্লাস না করিয়েই হাতিয়ে নিচ্ছেন স্কুলের প্রধান ও সহকারী প্রধান শিক্ষক বলে সংশ্লিস্ট সুত্রে জানাগেছে।

সরোজমিনে মঙ্গলবার সকাল ৯ টার দিয়ে গিয়ে দেখা গেছে ওই বিদ্যালয়ের ষষ্ঠ থেকে ১০ম শ্রেনি পর্যন্ত ছাত্রীদের ৮ টি রুমে ১২ জন শিক্ষক কোচিং করাচ্ছেন। ৮ টি রুমে প্রায় ৪০০ ছাত্রী কোচিংয়ে অংশগ্রহণ করছেন। মঙ্গলবার স্কুলের ছাত্রীদের জন্য কোচিং এর দিন নির্ধারন থাকায় শুধু ছাত্রীরাই কোচিং নিচ্ছেন। স্কুলের গেটের বাহিরে স্কুলে প্রবেশের অপেক্ষায় ভিড় জমিয়ে দাড়িয়ে আছেন ছাত্ররা। স্কুলের গেট খোলা থাকলেও কোচিং চলায় ভেতরে প্রবেশ করতে পারছেন না কোমলমতি ছাত্ররা।

সরেজমিনে কথা হয় ও বিদ্যালয়ের ৪ জন খন্ড কালিন শিক্ষক শফিকুল ইসলাম , মহিউদ্দিন মাহিন , খাইরুল ইসলাম ও জিহাদ হাসান এর সাথে। স্থাণীয় সুত্র জানায় খন্ডকালীন শিক্ষকদের চাহিদা কম থাকায় তাদের নামে মাত্র কোচিং ফি দিয়ে ওই স্কুলের প্রধান শিক্ষক মহিউদ্দিন আল মামুন ও সহকারী শিক্ষক মোঃ সেলিম মিয়া কোচিং করাচ্ছেন শিক্ষার্থীদের। মুষ্টিমেয় কোচিং হতে আয়ের টাকা ক্লাস না করেই প্রধান শিক্ষক ও সহকারী প্রধান শিক্ষক নিচ্ছেন বলে নাম প্রকাশ না করার শর্তে সাবেক ম্যানেজিং কমিটির কতিপয় ব্যাক্তি জানিয়েছেন।
ওই স্কুলে প্রবেশের প্রতিক্ষায় থাকা ৮ম শ্রেণির ছাত্র সোহান বলেন, আমরা সপ্তাহে ৩ দিন কোচিং করি। আমাদের কাছ থেকে মাসে ৬০০ টাকা করে নেয় শিক্ষকরা।
নবম শ্রেণীর ছাত্র নিরব বলেন, স্কুলে কোচিং বাধ্যতামূলক। না করলে অভিভাবকদের ডাকায় স্যারেরা। একদিন ছেলেরা কোচিং করে একদিন মেয়েরা । আমাদের সোমবার, বুধবার ও বৃহস্পতিবার কোচিং করায় শিক্ষকরা।

৭ম শ্রেণীর ছাত্রীর রেদোয়ানা বলেন, আমাদের সপ্তাহে ৩ দিন ২ বিষয়ে পড়ায় শিক্ষকরা। দুই সাবজেক্ট পড়ায় । এতে মাসে ৬০০ টাকা নেয় শিক্ষকরা।

৮ম শ্রেনীর ছাত্রী সায়মা বলেন, আমাদের স্কূলের সকল ছাত্র-ছাত্রীদের কোচিং করতে হয়। দুই বিষয়ে পড়ায় শিক্ষকরা তিন দিন করে সপ্তাহে পড়ায়ে মাসে ৬ শত করে টাকা নেয়।
৭ম ছাত্র আশিক বলেন আমাদের সোমবার বুধবার এবং বৃহস্পতিবার কোচিং করানো হয়। আমাদের ক্লাসের সকল ছাত্র-ছাত্রীরা কোচিং করে। আমাদের দুই সাবজেক্ট পড়ানো হয়। এতে মাসে ৬০০ করে টাকা নেওয়া হয়।

৯ম শ্রেণীর ছাত্র ইয়াসিন খান বলেন, তিন দিন ছেলে, তিন দিন মেয়েদের কোচিং হয়। এই স্কুলে পড়লে বাধ্যতামূলক কোচিং করতে হবে।

ওই স্কুলের সহকারী প্রধান শিক্ষক সেলিম হোসেন বলেন, স্কুলে ১০৩৭ জন শিক্ষর্ত্রী রয়েছে। সকলে কোচিং করেনা। ২ বিষয়ে কোচিং করিয়ে মাসে ৬ শত টাকা নেওয়া হলেও যারা কোচিং করে তাদের মধ্যে অনেকে টাকা দেয়না আবার অনেকে দিলেও অর্ধেক দেয়।

এ ব্যাপারে বেতকা ইউনিয়ন উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মহিউদ্দিন আল মামুন বলেন, করোনাকালিন সময়ে বাচ্চারা ঠিকমতো ক্লাস করতে পারছিল না। তাদের সেই ক্ষতি পুষিয়ে নেওয়ার জন্য এই কোচিং এর ব্যবস্থা করেছিলাম। এখন তেমন সাড়া পাচ্ছি না । ম্যানেজিং কমিটি সিদ্ধান্ত মতেই এই কোচিং চালু করা হয়েছিল। তবে মনে হয় আর চালাতে পারবো না।

এ ব্যাপারে ওই স্কুল ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি মোয়াজ্জেম হোসেন শিদকার এর মুঠোফোনে ফোন করে তা বন্ধ পাওয়া গেছে। পরে জানাগেছে ওনি দেশের বাহিরে অবস্থান করছেন । এ ব্যাপারে ম্যানেজিং কমিটি সদস্য জনি শিকদার এর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি এ ব্যাপারে কোন মন্তব্য করেননি।

এ ব্যাপারে টঙ্গিবাড়ী উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা খালেদা পারভীন বলেন, সরকারী বিধি বিধান মেনে প্রতি বিষয়ে ১৫০টাকা করে নিয়ে কোচিং করানো যাবে। তারা যদি বেশি নেয় এবং কোন নিয়ম অনুযায়ী কোচিং করাচ্ছে সেটা খোজঁ নিয়ে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

More News Of This Category
© All rights reserved © 2020 Daily Vorer Khabor
Design & Develop BY Coder Boss
themesba-lates1749691102