বৃহস্পতিবার, ২০ জানুয়ারী ২০২২, ০৫:২৮ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
আশুলিয়ায় অপহৃত যুবক উদ্ধার,তিন অপহরণকারী আটক ঋনের চড়া সুদের ভারে নিঃস্ব আশুলিয়ার নাজির সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক গ্রুপ “ভালবাসার বন্ধনের” কম্বল বিতরণ নতন বইয়ের আনন্দ সারা ফেলেছে বাংলার শিশুদের পুলিশের পৃথক দুই অভিযানঃঅবৈধ অস্ত্র ও মাদকসহ আটক (২) আশুলিয়া ফার্মেসী ডেভেলপমেন্ট ফাউন্ডেশনের সভাপতি লিটন ও সম্পাদক জাহিদ খালেদা জিয়ার কাছে হাসিনাকে ক্ষমা চাইতে হবে – গয়েস্বর এসএ পরিবহন কুরিয়ারে চাকরির প্রলোভনে, লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ আশুলিয়ায় সেপটি ট্যাংক থেকে শিশুর মরদেহ উদ্ধার গ্রুপিং কোন্দল : পাবনায় বিএনপির সমাবেশে যুবদল নেতাকে ছুরিকাহত,সমাবেশ পণ্ড সাভারে ইউপি নির্বাচনকে কেন্দ্র করে নির্বাচন কমিশন ও উপজেলা প্রশাসনের মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত আজ কিংবদন্তি সাংবাদিক নাজমুল হুদার শুভ জন্মদিন আসন্ন ৫নং ইয়ারপুর ইউনিয়‌নে মেম্বার পদপ্রা‌র্থী , মোঃ জ‌াহাঙ্গীর আলম বেড়ায় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ এর ভূয়া ম্যাজিট্রেট আটক ক‌রোনা সংক্রমণ নীর‌বে বাড়‌ছে  আসছে শুভ খান ও নিলিমা অভিনীত নতুন মিউজিক্যাল ফিল্ম“মায়া লাগাইলি” বিজয়ের ৫০তম দিবসে স্মৃতিসৌধে প্রেসিডেন্ট-প্রধানমন্ত্রীর বিনম্র শ্রদ্ধা আশু‌লিয়া‌তে প্রতি‌দিন বে‌ড়েই চল‌ছে যানজট সমস‌্যা জনসমাগম কমা‌নো জরু‌রি প্রয়োজন সাভারে বীর মুক্তিযোদ্ধা টিটোর সমাধিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা

‌বে‌ড়ে‌ছে ডেঙ্গু মশার উপদ্রব

‌মোঃ সা‌ফিউল আজীম খানঃ
  • Update Time : সোমবার, ২৯ নভেম্বর, ২০২১
  • ৭৫ পাঠক সংখ্যা

 

রাজধানীতে বছরব্যাপী মশার উপদ্রবের বিষয়টি বহুল আলোচিত। জনমনে এডিস মশার আতঙ্ক কাজ করলেও যে কোনো মশার বৃদ্ধিতেই তাদের আতঙ্ক বেড়ে যায়। ঢাকার দুই সিটি করপোরেশন করোনাভাইরাস মোকাবিলা এবং ডেঙ্গি নিয়ন্ত্রণে যতটা তৎপর ছিল, কিউলেক্স মশা নিয়ন্ত্রণে তাদের তেমন তৎপরতা লক্ষ করা যাচ্ছে না।

গতকাল দৈ‌নিক ভে‌া‌রের খব‌রে প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে, কেবল ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনেই মশার ৭৫০টি হট স্পট চিহ্নিত হয়েছে। এখনো ঢাকায় প্রতিদিন ডেঙ্গিতে আক্রান্ত হচ্ছেন ৮০ থেকে ৯০ জন। এর সঙ্গে যুক্ত হয়েছে কিউলেক্স মশার উৎপাত। একজন নাগরিকের পক্ষে কোনটি এডিস আর কোনটি কিউলেক্স মশা তা শনাক্ত করা সম্ভব নয়। ফলে যে কোনো মশার অতিরিক্ত উপদ্রবে মানুষ ভীষণভাবে উদ্বিগ্ন হবে, এটাই স্বাভাবিক। ঢাকার দুই সিটি করপোরেশনের সেই পুরোনো কথা-দমনের চেষ্টা চলছে, কিউলেক্স নিয়ন্ত্রণে থাকবে; যদিও সময়ের চাহিদার তুলনায় মশক নিধনে কার্যক্রম বিশেষভাবে দৃশ্যমান নয়। অক্টোবর ও নভেম্বরে বৃষ্টিপাত হওয়ায় এবার ঢাকায় কিউলেক্স মশার উপদ্রব বাড়বে, এমনই আশঙ্কা কীটতত্ত্ববিদদের। কাজেই পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে কর্তৃপক্ষকে যথাযথ পদক্ষেপ নিতে হবে। বস্তুত রাজধানীবাসী এখন মহামারি, ডেঙ্গির প্রাদুর্ভাব, শীতকালীন ধুলাবালুর যন্ত্রণায় অতিষ্ঠ। এর সঙ্গে কিউলেক্স মশার উপদ্রব নগরবাসীর কাছে ‘মড়ার উপর খাঁড়ার ঘা’ হয়ে দেখা দিয়েছে। গত বছর কিউলেক্স মশার প্রজনন মৌসুমে স্বাভাবিকের চেয়ে কয়েকগুণ বেশি মশা জন্মেছিল। এবার এটা আরও বেশি হতে পারে, এমনই আশঙ্কা বিশেষজ্ঞদের। এ পরিস্থিতিতে সময়মতো পদক্ষেপ নেওয়া না হলে পরিস্থিতি ভয়াবহ আকার ধারণ করার আশঙ্কা থেকেই যায়।

বর্তমানে রাজধানীবাসী বাসাবাড়ি-কর্মস্থল কোথাও কিউলেক্স মশার উপদ্রব থেকে নিস্তার পাচ্ছে না। কয়েল জ্বালিয়ে, ওষুধ স্প্রে করেও মশার হাত থেকে নিস্তার মিলছে না। কিউলেক্স মশা নিয়ন্ত্রণে জলাশয়, নর্দমা ও আবর্জনা পরিষ্কার করার পাশাপাশি লার্ভা নিধন গুরুত্বপূর্ণ। ঢাকার দুই সিটি করপোরেশনের পক্ষ থেকে কার্যক্রম জোরদারভাবে চালানো হচ্ছে দাবি করা হলেও ভুক্তভোগীরা বলছেন, সিটি করপোরেশনের কাজ লোক দেখানো। প্রধান সড়কের পাশ ধরে ওষুধ স্প্রে করা হলেও ভেতরের গলিতে মশক নিধন কর্মীদের খুব একটা দেখা মেলে না। অভিযোগ রয়েছে, অভিজাত এলাকাকে যেভাবে গুরুত্ব দেওয়া হয়, অন্য এলাকাকে সেভাবে গুরুত্ব দেওয়া হয় না।

জলাশয়সহ মশার প্রজননের জায়গাগুলো সারা বছর পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখা না হলে মশার উৎপাত নিয়ন্ত্রণ করা কঠিন। বদ্ধ জলাশয়, কাভার্ড ড্রেন, বক্স-কালভার্ট, প্লাস্টিক বর্জ্য ও ডাবের খোসায় জমে থাকা পানিতে মশার বংশবিস্তার ঘটে। ভুক্তভোগীদের অভিযোগ-বাসাবাড়ি, অফিস, বাজার, উন্মুক্ত স্থান, সড়ক, পার্ক, খেলার মাঠ, সর্বত্রই এখন মশার রাজত্ব। সংশ্লিষ্টরা জানান, অন্য বছর জানুয়ারিতে কিউলেক্স মশার প্রাদুর্ভাব দেখা যেত। এবার নভেম্বরে সেটা লক্ষ করা যাচ্ছে। বিষয়টিকে দুই সিটি কর্তৃপক্ষকে গুরুত্বের সঙ্গে নিতে হবে। গণমাধ্যমে কিউলেক্স মশার উপদ্রব নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা হলেও এই মশা নিয়ন্ত্রণে তেমন ভূমিকা লক্ষ করা যাচ্ছে না। মানুষ মশা মারার ওষুধের মান নিয়ে বিতর্ক শুনতে চায় না। তারা মশার উৎপাত থেকে রেহাই চায়। মশার কামড় থেকে মানুষের সুরক্ষা নিশ্চিত করতে কর্তৃপক্ষ যথাযথ পদক্ষেপ নেবে, এটাই সবার প্রত্যাশা।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
© All rights reserved © 2020 Daily Vorer Khabor
Design & Develop BY Coder Boss
themesba-lates1749691102