ঢাকাবৃহস্পতিবার , ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২১
আজকের সর্বশেষ সবখবর

আশুলিয়ার ১৯ স্বর্ণের দোকানে ডাকাতি ‘মাস্টারের’ নেতৃত্বে!

মোঃ শামীম আহমেদ
সেপ্টেম্বর ৩০, ২০২১ ৮:০৬ অপরাহ্ণ
Link Copied!

ঢাকার আশুলিয়ায় ১৯টি স্বর্ণের দোকানে ডাকাতির ঘটনা তদন্তে একটি আন্তঃজেলা ডাকাত দলের সন্ধান পায় পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)। একে একে এ দলের মূলহোতাসহ ১৫ জনকে গ্রেফতার করা হয়। যারা আশুলিয়া, রাজধানীর রাপাপ্লাজাসহ বেশ কয়েকটি ডাকাতির সঙ্গে জড়িত।

সিআইডি জানায়, এ ডাকাত দলটির নেতৃত্বে রয়েছেন সোহরাব হাওলাদার (৪৮) নামে একজন। যিনি দলের অন্যদের কাছে মাস্টার হিসেবে পরিচিত, তার পরিকল্পনা ও নেতৃত্বেই এসব ডাকাতি সংগঠিত হয়। এ ডাকাত দলের কাছ থেকে একটি স্পিডবোটও উদ্ধার করা হয়। যেটি ব্যবহার করে ডাকাতি শেষে নৌপথে দ্রুত পালিয়ে যেতো।

বৃহস্পতিবার (৩০ সেপ্টেম্বর) দুপুরে রাজধানীর মালিবাগে সিআইডি প্রধান কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানান সিআইডি ঢাকা মেট্রোর অতিরিক্ত ডিআইজি ইমাম হোসেন।

তিনি বলেন, বুধবার (২৯ সেপ্টেম্বর) রাজধানীর হাজারিবাগ এলাকায় অভিযান চালিয়ে ডাকাত দলের মূলহোতা সোহরাব হাওলাদারকে গ্রেফতার করে সিআইডি। গত ৬ সেপ্টেম্বর আশুলিয়ার ১৯টি স্বর্ণের দোকানে ডাকাতির ঘটনায় এখন পর্যন্ত ১৫ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। যাদের মধ্যে অন্তত ১০ জন আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন।

গ্রেফতারদের দেওয়া তথ্যমতে, বিভিন্ন এলাকা থেকে লুট করা স্বর্ণালঙ্কার ও স্বর্ণ গলিয়ে তৈরি করা পাত উদ্ধার করা হয়। একপর্যায়ে জানা যায়, পুরান ঢাকার তাঁতীবাজার কেন্দ্রীক একটি চক্র সক্রিয় রয়েছে। যারা এসব লুট করা স্বর্ণালঙ্কার সংগ্রহ করে পাত বানিয়ে বিক্রি করেন।

সিআইডির এ কর্মকর্তা বলেন, আশুলিয়ার ঘটনা তদন্তে গত ফেব্রুয়ারিতে রাজধানীর রাপা প্লাজায় স্বর্ণের দোকানে ডাকাতির রহস্যও উন্মোচিত হয়। এ ডাকাত দলের একটি গ্রুপ রাপা প্লাজায় ডাকাতি সংগঠিত করেছিলো।

ডাকাত দলটির দেওয়া তথ্যমতে, মুন্সিগঞ্জের শিমুলিয়া বাজার ঘাট থেকে ডাকাতিতে ব্যবহৃত একটি স্পিডবোট উদ্ধার করা হয়। যার বাজারমূল্য অনুমানিক ১৫ লাখ টাকা। ডাকাত দলের সদস্যরা ডাকাতি শেষে দ্রুত পালিয়ে যাওয়ার জন্য এ স্পিডবোট ব্যবহার করতো বলেও জানান।

✅ আমাদের প্রকাশিত কোন সংবাদের বিরুদ্ধে আপনার মতামত বা পরামর্শ থাকলে ই-মেইল করুনঃ dailyvorerkhabor@gmail.com ❌ বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।