ঢাকামঙ্গলবার , ৮ জুন ২০২১
আজকের সর্বশেষ খবর

আশুলিয়ায় জলাবদ্ধতা নিরসনে মানববন্ধন করেছে এলাকাবাসী


জুন ৮, ২০২১ ৯:৩৫ অপরাহ্ণ
Link Copied!

ঢাকার শিল্পাঞ্চল আশুলিয়ার পুকুরপার এলাকায় নয়নজুলি খালের অবকাঠামোগত সংস্কার ও জলাবদ্ধতা নিরসনে মানববন্ধন করেছে “চির তারণ্য সমাজকল্যাণ সংগঠন” এর সাথে এলাকাবাসী।

এলাকাবাসীর অভিযোগ, টানা বৃষ্টিপাতের কারণে পানির জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হওয়ায় জিরাবো পুকুরপাড় অঞ্চলের একমাত্র নিষ্কাশন ব্যবস্থা স্থানীয় দুটি শিল্পকারখানার অবৈধ দখলের কারণে বন্ধ রয়েছে। যার কারণে বৃষ্টির পানির সাথে কলকারখানার বর্জ্য মিশে প্লাবিত হচ্ছে এ অঞ্চলের শত শত বাড়িঘর। নিষ্কাশনের অভাবে জমে থাকা পানির নিচে পড়ে আছে সামাসা মোটর। যার কারণে বিশুদ্ধ পানির অভাব দেখা দিয়েছে এই অঞ্চলে।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, আশুলিয়ার জামগড়া ফ্যান্টাসি কিংডমের পাশ দিয়ে বয়ে আসা নয়জুলি জিরাবো পুকুরপাড় এসে লোসাকা গ্রুপ,আমান স্প্রিনিং মিলের রাসায়নিক বর্জ্যগুলোর কারণে নিষ্কাশন ব্যবস্থা বন্ধ হয়ে গেছে। যার কারণে প্লাবিত হয়ে পুকুরপাড় অঞ্চলের প্রায় হাজার খানেক বাড়িঘর বিষাক্ত পানিতে তলিয়ে গেছে। এতে ভারী কষ্টে দিন-রাত পার করছে অঞ্চলের বসবাসরত শিল্প শ্রমিক সহ বাসিন্দারা।

সোমবার সকাল ১১ টার দিকে জিরাবো পুকুরপাড় বাজার সংলগ্ন ব্রিজের উপরে নয়নজুলি নিষ্কাশনের দাবিতে এলাকাবাসী মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেন।

এ সময় আঃ রশিদ কাজী জানান, আমরা এলাকাবাসীর এই সমস্যাটি নিয়ে বেশ কয়েকবার আমাদের মন্ত্রী মহোদয়ের কাছে স্বারক লিপি পেশ করেছি কিন্তু আমলে আসেনাই। আমরা আজকের মানববন্ধনের মাধ্যমে মন্ত্রীর দৃষ্টিগোচর করতে চাই।আশা করি খুব দ্রুত এই সমস্যার সমাধান হবে।

এলাকাবাসীর দূর্ভোগের কারণে এলাকাবাসীর সাথে সম্মিলিত ভাবে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করতে এসে স্থানীয় স্বেচ্ছাসেবক সংগঠন চির তারণ্য সমাজকল্যাণের আহ্বায়ক মোজাম্মেল হক বলেন, এর আগে এই নয়নজুলিতে এমন দূর্ভোগ চোখে পড়ে নাই। এখন এই এলাকার দুটি শিল্পকারখানা লোসাকা গ্রুপ ও আমান স্প্রিনিং মিলের অবৈধ ভাবে দখল করে তাদের রাসায়নিক ক্ষতিকর বর্জ্য ফেলে। ৬ ফিট পাইপ লাইনের মাধ্যমে তাদের রাসায়নিক পানি নিষ্কাশনের ধারণ ক্ষমতা না থাকায় উলটো পানি পেছনের দিকে চলে যায়। যাতে হাল্কা বৃষ্টিপাত হলেও তা এলাকার শত শত বাড়িঘর প্লাবিত হয়ে যায়।

এলাকাবাসীর অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে লোসাকা গ্রুপের ‘জিএমডি’ শফিক আহম্মেদ সাংবাদিকদের বলেন, এলাকার কিছু গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ নিয়ে আমরা পানি নিষ্কাশনের কাজ করেছি। তাদের মধ্যে এলাকার আফজাল মেম্বার, বকুল (সাবেক)মেম্বার ও লিয়াকত দেওয়ানকে সাথে নিয়েই আমরা কাজ করেছি।

অবৈধ ভাবে দখল প্রসঙ্গে তিনি বলেন, আমরা প্রশাসন ও ভূমি অফিস থেকে পাস এনেছি। নয়নজুলি ও খালের লিজিং দেওয়ার নিয়ম না থাকলেও তার দাবীর প্রেক্ষিতে কোন লিখিত প্রমাণ দেখাতে পারেনি।

 

তবে এলাকাবাসীর দূর্ভোগ নিরসনে আলোচনার মাধ্যমে খুব দ্রুত কার্যকরী ভূমিকা রাখবেন বলে জানান, এই কর্মকর্তা।

তবে এবিষয়ে আমান স্প্রিনিং মিলস্ কর্তৃপক্ষ সাংবাদিকদের সাথে কোন কথা বলেনি।

দূর্ভোগ নিরসনে দ্রুত সংশ্লিষ্ট মহলের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন এলাকাবাসী।

✅ আমাদের প্রকাশিত কোন সংবাদের বিরুদ্ধে আপনার মতামত বা পরামর্শ থাকলে ই-মেইল করুনঃ dailyvorerkhabor@gmail.com ❌ বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।