ঢাকামঙ্গলবার , ৯ জুন ২০২০
আজকের সর্বশেষ সবখবর

বাজেট নিয়ে এবি পার্টির ১৩ প্রস্তাবনা

dailyvorerkhabor
জুন ৯, ২০২০ ৯:২১ অপরাহ্ণ
Link Copied!

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ  ২০২০-২১ অর্থবছরের বাজেট ঘোষণার সময় পরিবর্তনের আহ্বান জানিয়েছে আমার বাংলাদেশ পার্টি (এবি পার্টি)। আজ মঙ্গলবার রাজধানীর বিজয় নগরস্থ দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে ‘করোনা আক্রান্ত অর্থনৈতিক দুর্যোগে কেমন বাজেট চাই: সংস্কার ও খাতভিত্তিক সুপারিশ’ শীর্ষক এক ফেসবুক ও ইউটিউব লাইভ সংবাদ সম্মেলনে এ আহ্বান জানান এবি পার্টির আহ্বায়ক এএফএম সোলায়মান চৌধুরী। বক্তব্যে বাজেট সময়কাল পরিবর্তন করে জানুয়ারী-ডিসেম্বর পর্যন্ত নির্ধারণ করার প্রস্তাব করা হয়। বাজেট বাস্তবায়নে দক্ষতা আনতে যথাযথ জবাবদিহিতা মেকানিজম চালু এবং তিরস্কার/পুরস্কার উভয় প্রণোদনার ব্যাবস্থা করার দাবি জানানো হয়। প্রস্তাবে বলা হয় অর্থমন্ত্রী প্রত্যেক কোয়ার্টার শেষে বাজেটের অগ্রগতি সম্পর্কে প্রতিবেদন পেশ করবেন এবং পরবর্তী কোয়ার্টারে বাস্তবায়নে দক্ষতা নিশ্চিতে সাংসদরা দিকনির্দেশনা দিবেন।

এসময় দলের পক্ষ থেকে সরকারের প্রতি বাজেট নিয়ে ১৩ টি প্রস্তাবনা তুলে ধরা হয়। প্রস্তাবনা গুলো হল:

* বাজেট সময়কাল পরিবর্তন করে জানুয়ারী-ডিসেম্বর পর্যন্ত নির্ধারণ করা
* সার্বজনীন স্বাস্থ্য বীমা ও সেবা নিশ্চিত করতে জিডিপির কমপক্ষে ১০ শতাংশ তহবিল বরাদ্ধ প্রদান।
* ঔষধ উৎপাদন, বিতরণ, স্বাস্ব্য সেবার মাননোন্নয়ন, প্রয়োজনীয় মেডিকেল যন্ত্রপাতি, আইসিইউ এবং ভ্যান্টিলেটর মেশিন ক্রয়, সংক্রামক রোগ নিয়ন্ত্রণ, কম্যুনিটি-ভিত্তিক চিকিৎসা প্রদানের সক্ষমতা বাড়াতে ব্যায় বরাদ্ধ করা।
* সরকার উন্নয়ন বাজেটের মাত্র ৬০-৬৫ শতাংশ বাস্তবায়ন করতে সক্ষম।

সে অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগিয়ে অযথা বিশাল অংকের উন্নয়ন বাজেট না করে ২০২০-২১ অর্থ বছরে বাস্তবভিত্তিক বাজেট ঘোষণা করা।
* কৃষককে সর্বোচ্চ প্রণোদনা ও কৃষি খাতে বাজেটের কমপক্ষে ১০% বরাদ্দ প্রদান।
* নিজস্ব আয়কর সীমা ২.৫ লাখ হতে ৪ লাখ টাকা নির্ধারণ।
* দ্রুত বিদ্যুৎ উৎপাদন ও সরবরাহ আইন ২০১০” ও দুর্নীতিযুক্ত কুইক রেন্টাল বিদ্যুৎ ব্যবস্থা বাতিলের দাবি।
* বায়ু এবং পানি দূষণ কমাতে, দূষণ কর আরোপ করা। পরিবেশ অধিদফতরকে স্বাধীন এবং সক্ষম প্রতিষ্ঠান হিসাবে গড়ে তোলা।
* সুন্দরবন ও অন্যান্য সংরক্ষিত বনাঞ্চলের নিকটে কোন শিল্প ও কয়লা বিদ্যুৎ কেন্দ্রের অনুমতি প্রদানের পরিবর্তে ঐসব জায়গায় নবায়নযোগ্য বিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্র করা।
* উপকুলে লবণাক্ততা নিরসনে অধিক মাত্রার লবণ সহিষ্ণু ধানের জাত উদ্ভাবন, স্থায়ী বাঁধ নির্মাণ।
* ‘শিক্ষা ও গবেষণা তহবিল’ প্রতিষ্ঠা এবং সেখানে প্রতি বছর কমপক্ষে ১০০ কোটি টাকা বরাদ্ধ প্রদান।
* অনলাইন ভিত্তিক শিক্ষা ও দক্ষতা বৃদ্ধির জন্য আমদানিকৃত উপকরণকে সব ধরনের কর হতে অব্যাহতি।
* প্রত্যেক সক্ষম নাগরিকের সামরিক প্রশিক্ষণের মাধ্যমে জন প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা গড়ে তোলার সুপারিশ।

সোলায়মান চৌধুরী আরো বলেন, চীন, কিউবার মতো দেশগুলোর ন্যায় স্বাস্থ্য সেবার মান আন্তর্জাতিক মানে নিতে সার্বজনীন স্বাস্থ্য বীমা ও সেবা নিশ্চিত করতে জিডিপির কমপক্ষে ১০ শতাংশ তহবিল বরাদ্দ প্রদান করতে হবে। তিনি বলেন, বিগত অর্থ বছরের সম্পুরক বাজেট পর্যালোচনা করলে দেখা যায় সরকার উন্নয়ন বাজেটের মাত্র ৬০-৬৫ শতাংশ বাস্তবায়ন করতে সক্ষম। সে অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগিয়ে অযথা বিশাল অংকের উন্নয়ন বাজেট না করে ২০২০-২১ অর্থ বছরে বাস্তবভিত্তিক বাজেট ঘোষণা করা উচিৎ।

দলের সহকারী সদস্য সচিব আমিনুল ইসলাম এফসিএ-এর সঞ্চালনায় সংবাদ সম্মেলনে এবি পার্টির যুগ্ম আহ্বায়ক প্রফেসর ডা. মেজর (অব.) আব্দুল ওহাব মিনার, যুগ্ম সদস্য সচিব ব্যারিস্টার আসাদুজ্জামান ফুয়াদ, ব্যারিস্টার যুবায়ের আহমেদ ভুঁইয়া, সহকারী সদস্য সচিব নাজমূল হুদা অপু, আনোয়ার সাদাত টুটুল, শাহ আব্দুর রহমান প্রমূখ উপস্থিত ছিলেন।

✅ আমাদের প্রকাশিত কোন সংবাদের বিরুদ্ধে আপনার মতামত বা পরামর্শ থাকলে ই-মেইল করুনঃ dailyvorerkhabor@gmail.com ❌ বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।